ফরেক্স ট্রেডিং এর পরিভাষা

ফরেক্স ট্রেডিং এর পরিভাষা

ফরেক্স ট্রেডিং একটি দীর্ঘমেয়াদী ব্যবসায় ক্ষেত্র যা আপনি চাইলে আপনার জীবিকা নির্বাহের জন্য পছন্দ করতে পারেন। এতো বড় একটি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান যার কিছু প্রাথমিক ধারণা আমাদের সকলেরই থাকা উচিত। এখানে এমন অনেক ট্রেডার আছে যারা হাটার আগেই দৌড়ানোর চেষ্টা করতে চায় এবং ব্যর্থতার শিকার হই। আপনি অবশ্যই ফরেক্স ট্রেডিং এ উৎসাহী হতে পারেন, কিন্তু এটিকে পেশা হিসেবে নিতে চাইলে আপনার ফরেক্স প্রশিক্ষণ নেওয়াটা অত্যাবশ্যক। ফরেক্স এর কিছু সাধারণ টার্মস আছে যার সম্পর্কে আমাদের ধারণা থাকা দরকার।

আমরা আজকে আলোচনা করবো ফরেক্স ট্রেডিং এর সাধারণ কিছু টার্মস যা আমাদের ফরেক্স ট্রেডিং এর জন্য জানা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

কারেন্সি পেয়ারঃ আপনি ফরেক্স ট্রেডিং এর শুরুতেই যে বিষয়টি পরিলক্ষিত করবেন তা হলো কারেন্সি পেয়ার। ফরেক্স ট্রেডিং করা হয় জোড়ার(pair) মাধ্যমে। এখানে দুটি কারেন্সির মধ্যে মুদ্রার মানের পরিবর্তনের মাধ্যমে ট্রেড করতে হয়। এখনে যখন আমরা একটি পেয়ারে ট্রেড করি আমরা শুধু একটি মুদ্রা ক্রয় অথবা বিক্রয় করি না, আমরা একটি মুদ্রার সাথে অন্য একটি সম্পর্কযুক্ত মুদ্রা ক্রয়/বিক্রয় করি।যেমনঃ EUR/USD, USD/JPY, GBP/USD, USD/AUD ইত্যাদি। ফরেক্সের সব ধরনের পেয়ারে ট্রেড করতে- এখানে ক্লিক করুন।

বেইস কারেন্সি এবং কোট কারেন্সিঃ ফরেক্স এর মুদ্রা জোড়ায়(currency pair) দুটি দেশের মুদ্রা থাকে এটা আমরা উপরে জানতে পেরেছি। এই দুটি জোড়ার মধ্যে একটি বেইস মুদ্রা (base currency) এবং অন্যটি কোট মুদ্রা (quote currency)জোড়ার প্রথম মুদ্রাটিকে বলা হয় বেইস মুদ্রা, যার মূল্য সবসময় ১ হয়। দ্বিতীয় মুদ্রাটিকে বলা হয় কোট মুদ্রা যার মূল্য পরিবর্তন হতে থাকে বেইস মুদ্রার মানের উপর। যেমনঃ USD/JPY  একটি পেয়ার এবং এই পেয়ারের মূল্য ১.৩৩এখানে USD  হচ্ছে বেইস মুদ্রা এবং AUD হচ্ছে কোট মুদ্রা। বেইস মুদ্রার মান ১ এবং ১.৩৩ হচ্ছে কোট মুদ্রার মান। এর মানে হচ্ছে আমরা ১ ডলার দিয়ে ১.৩৩ AUD কিনতে পারবো।

পিপঃ একটি জোড়ার মূল্য কি পরিমাণ পরিবর্তন হয়েছে তা পরিমাপ করার মাধ্যমকে ফরেক্স মার্কেটে পিপ বলা হয়। সাধারণ নিয়মে আমরা যদি ইউরো এবং ডলারের বিনিময় হার ধরি ১.২০, যেখানে শুধু দুটি দশমিক সংখ্যা থাকে। কিন্তু ফরেক্স মার্কেটে মূল্য ধরা হয় ৪টি দশমিক সংখ্যায়, কিছু কিছু ক্ষেত্রে ৬টি সংখ্যাও থাকে। যেমনঃ ১.২০০০। এই মানের শেষ সংখ্যাকে বলা হয় পিপ। যদি এই মুদ্রার মান ১.২০০০ থেকে ১.২০০১ হয় তার মানে মার্কেট ১ পিপ সরেছে।

স্প্রেডঃ সহজ ভাষায় যদি আমরা বুঝতে চাই তাহলে স্প্রেড হচ্ছে ফরেক্স মার্কেটে ট্রেড করার খরচ যা প্রত্যেক ট্রেডারকেই পরিশোধ করতে হয় প্রতি ট্রেডে। এই খরচটি আমাদের ব্রোকার কেটে নেই আমাদের প্রতি ট্রেডে। অন্যভাবে যদি আমরা দেখি তাহলে মুদ্রার বিড প্রাইস (BID price) এবং আস্ক প্রাইসের (ASK price) পার্থক্যই হলো স্প্রেড। বিড মূল্য সবসময় আস্ক মূল্য থেকে কম হয়। এটি ফরেক্স ব্রোকার নিয়ে থাকে তাদের সেবা প্রদানের জন্য। ব্রোকার অনুসারে স্প্রেডের মানও পরিবর্তন হয়। সর্বনিম্ন স্প্রেড রেটে ট্রেড করতে- এখানে ক্লিক করুন।

বিড প্রাইসঃ বিড প্রাইস হলো সেই দাম যা একটি মুদ্রা পেয়ার ক্রয় করতে ব্রোকার বা মার্কেট, ফরেক্স ট্রেডারের কাছ থেকে নিয়ে থাকে। এই দামে একজন ট্রেডার বেইস মুদ্রা ব্রোকারকে বিক্রি করতে পারেন।

আস্ক প্রাইসঃ আস্ক প্রাইস হলো সেই দাম যা একটি মুদ্রা পেয়ার বিক্রয় করতে ব্রোকার বা মার্কেট, ফরেক্স ট্রেডারকে দিয়ে থাকে। এই মূল্যে ট্রেডার ব্রোকার থেকে বেইস মুদ্রা কিনতে পারে।

লেভারেজঃ লেভারেজ হচ্ছে একধরনের ট্রেডিং লোন যা ফরেক্স ব্রোকার তার গ্রাহকদের প্রদান করে থাকে যাতে তারা অধিক মার্জিনের সাথে ট্রেড করে লাভবান হতে পারে। উদাহরণস্বরূপঃ আপনার একাউন্ট মার্জিন ১০০০$ এবং আপনার ব্রোকার আপনাকে ১:২০০ লেভারেজ সুবিধা দেয়। এর মানে আপনি সর্বোচ্চ (১০০০ x ২০০)= ২০০০০০$ পসিশনের ট্রেড নিতে পারবেন। সেরা লেভারেজ সুবিধা পেতে- এখানে ক্লিক করুন।

মার্জিনঃ ফরেক্স মার্কেটে কোনো নতুন পসিশন খুলতে অথবা আগের নেওয়া পসিশন বজায় রাখার জন্য একাউন্টে যে পরিমাণ বিনিয়োগের প্রয়োজন হয় তাকে মার্জিন বলা হয়। মার্জিন দুই ধরণের, মুক্ত(used) এবং ব্যবহৃত(used)ব্যবহৃত মারজিন বলতে বোঝায় ট্রেডারের বর্তমানে নেওয়া মার্কেট পসিশন ধরে রাখতে যে পরিমাণ মার্জিন ব্যবহার হচ্ছে এবং মুক্ত মার্জিন বুঝায় বলতে, নতুন পসিশন খুলতে আপনার কাছে যে পরিমাণ মার্জিন অবশিষ্ট আছে। লেভারেজের মাধ্যমে এই মার্জিনের পরিমাণ বাড়ানো যায় যা আমরা পূর্বে জানতে পেরেছি। যদি ট্রেডারের একাউন্ট তার বর্তমান মার্কেট পসিশন ধরে রাখতে অক্ষম হয় তাহলে একটি মার্জিন কল দেওয়া হয় যাতে একাউন্টে নতুন করে বিনিয়োগ করা হয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রে ফরেক্স ব্রোকাররা এরকম পরিস্থিতিতে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ট্রেড বন্ধ করে দেয়। ট্রেড পসিশন খোলা রাখতে কি পরিমাণ মার্জিন প্রয়োজন তা মূলত নির্ভর করে ফরেক্স ব্রোকারের উপর। সেরা মার্জিন রেঞ্জ পেতে-এখানে ক্লিক করুন।

ফরেক্স মার্কেটে ট্রেডিং করার জন্য আমাদের ফরেক্স এর পরিভাষা জানা উচিত আগে। নাহলে আমরা ট্রেডিং এ খুব সহজে বিভ্রান্ত এবং পথভ্রষ্ট হয়ে পড়তে পারি। যা আমাদের সাফল্যময় ট্রেডিং এর জন্য মোটেও কাম্য নয়। সুতরাং আমাদের উচিত ট্রেডিং জীবন শুরু করার পূর্বে ফরেক্স এর পরিভাষা সম্পর্কে ভালোভাবে ধারণা নেওয়া।